IT Support BD

IT Support BD

Ask any IT Related Help or Queries

Phone Support: +8809638-020277

Friday, February 22, 2019

(পিসি/ল্যাপটপ) কন্ট্রোল করুন পি.সি অথবা ল্যাপটপ আপনার এন্ড্রয়েড অথবা আইফোন থেকে।

আসসালামু আলাইকুম সবাই কেমন আছেন? আশা করি ভাল আছেন। 

আপনি যদি চান আপনার কম্পিউটার অথবা সখের ল্যাপটপ টির কিবোর্ড বা মাউসে হাত না লাগিয়ে েলেখা  এবং কন্ট্রোল করতে তাহলে এই পোষ্ট টি আপনার জন্য। এদিকে আসুন। একটু ধ্যৈর্য্য ধরে পড়ুন। কাজে আপনার ই লাগবে।


দরকারী জিনিস পত্র:
পি.সি হলে ব্লুটুথ অথবা ওয়্যারলেস এডাপ্টার।
ল্যাপটপ হলে (অতকিছু লাগবে না। সব আছে শুধু ইন্সটল করা আছে কিনা দেখে নিন) যদি ইন্সটল করা না থাকে তাহলে ড্রাইভারপ্যাক সলুশন দিয়ে ডাউনলোড করতে পারেন অথবা থ্রিডিপি চিপ দিয়ে ডাউনলোড করতে পারেন। গুগল মামার কাছে চাইলেই
 উনি দিয়ে দেবেন।

এখন চেক করতে হবে। আপনার উইন্ডোজ টির আরকিটেকচার কত ৬৪ বিট নাকি ৩২ বিট। এখানে শুধু উইন্ডোজ এর জন্য আলোচনা করা হয়েছে। অন্য অপারেটিং সিসটেম এর জন্য অনুগ্রহ করে গুগল মামাকে জিজ্ঞেস করুন।

এখন আপনার উইন্ডোজ  এর আর্কিটেকচার অনুযায়ী সফটওয়ারটি সার্চ করুন। (Unified Remote আপনার আর্কিটেকচার) এবার ইন্সটল করুন। হয়ে গেলে অন করুন। এবার সার্ভার নির্বাচন করুন ব্লুটুথ নাকি ওয়াইফাই। আর একটি এ্যাপ দরকার হবে সেটির নাম হল My Public Wifi এটাও ডাউনলোড করুন। সেটাপ করুন ওয়াফাই হটসপট তৈরী করুন। এরপর মোবাইলে একই ‍এ্যাপ সার্চ করে ইন্সটল করুন। (Unified Remote) প্লে স্টোর অথবা আপল ষ্টোরে পেয়ে যাবেন। হটসপট টি কানেক্ট করুন অথবা ব্লুটুথ পেয়ার করুন সার্ভার থেকে। এবার মেইন এ্যাপ হোম এ গেলে আপনার রিমোট কানেকশন গুলো লোড হবে একটু ওয়েট করুন। এখানে কিবোর্ড , মাউস প্যাড, মিডিয়া প্লেয়ার, ইন্টারনেট অপশন আলাদা আলাদা মেনু দেখতে পাবেন প্রয়োজন ক্ষেত্রে অপশন সিলেক্ট করে নিন। পর এনজয় করুন।

আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ
কোন ধরনের সমস্যা থাকলে আমাদের জানাতে পারেন। ফোন অথবা চ্যাট অপশনে।

Sunday, February 17, 2019

(ফ্রিল্যান্সিং) ফ্রিল্যন্সিং করে ক্যারিয়ার গড়তে চান?

আপনি কি ফ্রিল্যান্সিং করে আপনার ক্যারিয়ার গড়তে চান?



তাহলে এই পোষ্ট টি আপনার জন্য। একটু মনোযোগ দিয়ে পড়বেন।

ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য বেশ কয়েকটি অনলাইন মার্কেটপ্লেস আছে।


যেমন আপওয়ার্ক, ফ্রীলান্স, ইল্যান্স ফাইভার, পিপল পার আওয়ার ইত্যাদি। এগুলো হল বড় ধরনের ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস। ছোট ছোট কাজ ও করতে পারবেন কম্পিউটার অথবা মোবাইলে কাজ করার জন্য কিছু মার্কেটপ্লেস আছে যেমন, মাইক্রোজব, মাইক্রোওয়ার্কার্স ইত্যাদি। এই ছোট সাইট গুলো মূলত একাউন্ট খোলা লাইক করা পেজে শেয়ার করা এ ধরনের কাজ অফার করে থাকে।



আপওয়ার্ক, ফ্রীলান্স, ইল্যান্স এর মত বাংলাদেশেও বেশ কয়েকটি সাইট রয়েছে। যেখানে বাংলাদেশ থেকে সরাসরি সাইটগুলো পরিচালনা করা হয়। এই সাইট গুলো হল বি ল্যান্স, কাজ কি এই ধরনের সাইট।

আপনি যদি বাইরের মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে চান। তাহলে আমার প্রথম সাজেশন থাকবে ফাইভার। এবং বাংলাদেশি দুটো সাইটেই সাইনআপ করে আপনার পোর্টফলিও আপডেট করে রাখতে পারেন। অবশ্য প্রোফাইল বা পোর্টফলিও সবগুলো সাইটের আপডেট করে রাখতে হয়। কারণ বায়ার অথবা যে আপনাকে কাজ দিবে সে আপনার পূর্বের কাজ অথবা আপনার পোর্টফলিওতে সাজিয়ে রাখা সুন্দর কাজ গুলি দেখেই আপনাকে কাজ দিবে। এখন কথা হলো ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি পোস্ট করা হয়েছে। গ্রাফিক ডিজাইন, এক্সেল এক্সপার্ট বা ডাটা এন্ট্রি এক্সপার্ট। এই তিন ধরনের কাজের প্রয়োজন কখনো শেষ হয় না। অন্যান্য যে কোন পেশা বা কাজ জেটিতে আপনি পারদর্শী সে ধরনের কিছু কাজ পর্টফলিও তে আপডেট করে রাখুন। ফ্রীলান্সিং করার ক্ষেত্রে আরো বেশ কিছু কাজ আছে যেগুলো ঘন্টা অথবা দিন হিসেবে কাজ করতে পারবেন। ওয়েবসাইট ডিজাইন, ডেভলপিং, ওয়ার্ডপ্রেস অপটিমাইজেশন এ ধরনের কাজের বাজেট থাকে অনেক বেশি। তবে গ্রাফিক্স ডিজাইন বা ডাটা এন্ট্রিতেও খুব বেশি একটা কম নয়। প্রথমেই বলেছিলাম আমার সাজেশন থাকবে প্রথমে ফাইভারে। কারণটি হলো এখানে অ্যাপ্লিকেশন অ্যাপ্রভাল এর প্রয়োজন হয় না। আপওয়ার্ক, ফ্রীল্যান্স, ইল্যান্স অথবা পিপল পার আওয়ার এ অ্যাপ্লিকেশন অ্যাপ্রভাল প্রয়োজন হয়। এজন্য ফাইবারে আপনার অ্যাকাউন্ট খুলে গিগ তৈরি করে আপনার পোর্টফোলিও বানাতে পারেন।


আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


কোন প্রশ্ন থাকলে আমাদের সাপোর্টে কথা বলুন।
চ্যাট অথবা ফোনে।

Saturday, February 9, 2019

(টাইপিং) কি-বোর্ড এ হাত না লাগিয়ে টাইপ করুন-ম্যাজিক


ডেক্সটপ হোক বা ল্যাপটপ যে কোন কিছু লিখুন কথা বলে।
ভয়েজ আপনার লেখা জার-তার

·        আপনি কি একজন কম্পিউটার অপারেটর বা লেখক?
·        আপনি কি টাইপ করতে করতে আঙ্গুলের চামড়া উঠিয়ে ফেলেছন?
·        টাইপ করতে কষ্ট হয়?
·        ইন্টারনেট কানেকশন দিয়ে দ্রুত গতিতে লিখতে চান?
·        ল্যাপটপ আছে কিন্তু বাটন সা,রে,গা,মা,পা,ধা,নি,সা হয়ে যাচ্ছে?
·        ডেক্সটপ আছে এবং একটি মাইক্রোফোন ও আছে?

তাহলে একটু এদিকে আসেন মানে একটু চিপায় আসেন ব্যাপার টা বুঝিয়ে বলছি।

আসসালামু আলাইকুম, সবাই কেমন আছেন, আশা করি উপরওয়াল অশেষ রহমতে সবাই ভাল এবং সুস্থ্য আছেন। তো কথায় আসি। 
গুগল মামা আমাদের জি-বোর্ড দিয়েছেন এন্ড্রয়েড ফোন এ বাংলা, ইংলিশ, হিব্রু সহ অনেক ভাষায় কথা বলে লেখার জন্য সুবিধা। কিন্তু ভাইজান আমি তো ল্যাপটপ/ ডেক্সটপ ইউজার আমি কি করবো? নো টেনশন এখন থেকে কথাবলবেন আর লেখা আপনার স্ক্রিনে। পড়ে খুব ভাললাগছে তাইনা। একদম ঠিক ধরেছেন। আহ কি না মজা বললাম আর লেখা হল এটা আবার কখনো হয় নাকি? হয় রে ভাই হয় কারন গুগল মামা আমাদের চিন্তাধারার বাইরে কাজ করেন। মানে আমাদের চিন্তা যেখানে শেষ হয় সেখানথেকে তাদের ভাবনা শুরু। তো কথা আর কি বা বলব খালি বক বক করি। বিষয়টি হল প্রথমত আপনার একটি জিমেইল আইডি থাকতে হবে। ওহ এটার আর নতুন কি? আমাদের হগ্গলেরই তো প্রায় আছেই না থাকলে ২ মিনিটের ব্যাপার এটা তো আর সরকারী চাকরী নয় যে মামা, চাচা, খালু দরকার? সেরকম ও যদি হয় গুগল মামা তো আমাদের মামাই। কথা সত্য? জ্বি হ্য!!! প্রথমে জেটি করতে হবে গুগল একাউন্টটি আপনার ক্রোম ব্রাউজারে লগ-ইন করুন তারপর docs.google.com এ প্রবেশ করুন। তারপর সেখান থেকে ব্লাংক পেইজ সিলেক্ট করুন। দাড়ান কিই জান? একটু ওয়েট তো করতেই হবে পেজ লোড হচ্ছে না? এর পর পুরো পেইজটি লোড হলে টুলস এ ক্লিক করুন। কিছু দেখতে পাচ্ছেন? আরে হ্যা এখানে তো ভয়েস টাইপিং একটা অপশন আছে!!! দেখুন এখানে কিন্তু আমি ক্লিক করতে পারবো না আপনাকেই করতে হবে। ইসস করে ফেলেছেন? ঝা? আচ্ছা এটার একটা কি-বোর্ড শর্টকাট ও আছে CTRL+SHIFT+S বাহ এইতো দেখে ফেলেছেন। এটাতে ক্লিক করার পর। পেইজের বাম পার্শ্বে একটি নতুন বক্স এসে গেলো হায় হায় কিন্তু এ কি এখানে তো শুধু মাত্র ইংলিশ আছে বাংলা কইত্তুন পাইবাম? একটু ওয়েট করেন। ঠিক যেখানে ইংলিশ লেখাটি রয়েছে সেখানে ক্লিক করে পছন্দের ভাষা বা কাঙ্খিত ভাষাটি সিলেক্ট করুন আপনার মাউস এর সাহায্যে। তারপর। তারপর আর কি মাইক্রোফোন কান্টেক্ট করা আছে কিনা সেটি খেয়াল করুন (ডেক্সটপ ইউজার রা)। ল্যাপটপ ইউজার রা নিশ্চিন্ত কারন ল্যাপটপ এ বিল্ট-ইন মাইক্রোফোন থাকে। বলবেন আর লেখা হবে না কিন্তু এত কষ্ট করে এতদুর এলাম আর লেখা হবে না এটা কেমন কথা হ্যা কারন মাইক্রোফোন চিহ্নিত যে বাটন টি বাম পার্শ্বে দেখতে পাচ্ছেন সেটিতে ক্লিক করার পর উপরে একটি পপ-আপ অপশন আসবে যেটি হচ্ছে আপনার সাধের মাইক্রোফোনটি গুগল মামা ইউজ করার পারমিশন চাইছেন। দেখেছেন গুগল মামা কত ভাল আপনার পারমিশন ও চায়। উক্ত পারমিশন টি এলো করে দেওয়ার পর ই আপনি যা বলবেন তাই লেখা আপনার স্ক্রিনে দেখতে পাবেন।

গুগল ডক্স কে জানাই অসংখ্য ধন্যবাদ

আমাদের সাথে মেইনটেইন থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আবার আসবেন।

(এন্ড্রয়েড) এখন থেকে সরাসরি এন্ড্রয়েড অপারেটিং ব্যবহার করুন সেটআপ করে পিসি বা ল্যাপটপ

সরাসরি ইন্সটল করা যাবে এন্ড্রয়েড একদম উন্ডোজের মতই

  • আপনি কি এন্ড্রয়েড গেম পাগলা
  • আপনি কি আপনার ফোনের পারফরমেন্স নিয়ে হতাশ
  • আপনি কি চান আপনার ল্যাপটপ বা আপনার ডেক্সটপ টি হয়ে উঠুক সাধের এন্ড্রয়েড
  • তাহলে এই পোষ্টটি শুধুমাত্র আপনারই জন্য কষ্ট করে পুরো বিয়ষটি পড়েনিন


আসসালামু আলাইকুম সবাই কেমন আছেন? আশা করি সবাই উপরওয়ালার রহমতে সুস্থ্য এবং ভাল আছেন।

আজকে যে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি সেটি হচ্ছে। এন্ড্রয়েড ইউথ ইয়োর ল্যাপটপ অর ডেক্সটপ। এটা পড়ে মনে করছেন এটা আর নুতন কি আসলে নতুন বলতে এতদিন ইউন্ডোস অপারেটিং সিসটেমে অনেক ধরনের সিমুলেটর ব্যবহার করে এ্যান্ড্রয়েড ব্যবহার করেছি কিন্তু আজ বলব পুরোটা মানে আপনার পিসি বা ল্যাপটপ ই হয়ে যাবে এন্ড্রয়েড। মানে হচ্ছে না থাকবে বাশঁ না বাজবে বাঁশি। এই কথাটা বলার কারন হচ্ছে যখনি উইন্ডোজ অপারেটিং সিষ্টেমে ‍সিমুলেটর গুলি ইন্সটল করে তাতে কিছু অপেন করতে চান বা যান তখনি কিছু না কিছু সমস্যার সম্মুখিন হন উধাহরন সরূপ: ল্যাগ করা, পিসি স্লো করা, ম্যাসেজ আশা যেমন আপনার গ্রাফিক্স ড্রাইভারটি আপডেটেড নয় হুদাই হুদাই ইত্যাদি। এই সকল সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে হয় এন্ড্রয়েড ডিরেক্টলি আপনার পিসি অথবা ল্যাপটপ এ উন্ডোজের পরিবর্তে ইন্সটল করতে হবে না হয় প্রতি নিয়ত ফোন আপডেট করার পিছে লেগে থাকতে হবে। বাজারে কোন ব্রান্ডের ফোন বা বেশি র‌্যামের ফোন আসলো চিপসেট তাহার কেমন ইত্যাদি। যদি আপনার কাথে পুরাতন বা খুব কাজের নয় এমন পিসি থাকে অথবা কাজের ও পিসি থেকে থাকে তাতেই আপনি এন্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ইন্সটল করতে পারেন। কোনপ্রকার সিমুলেটর ছাড়াই। তাতে যে সুবিধাগুলি পাবেন উপরোল্লিখিত তারপরও আবার বলছি উধাহরণ: ল্যাগ করা, পিসি স্লো করা, ম্যাসেজ আশা যেমন আপনার গ্রাফিক্স ড্রাইভারটি আপডেটেড নয় হুদাই হুদাই ইত্যাদি সমস্যার সম্মুখিন হবেন না। তাবে একেবারেই যে হবেন না তা কিন্তু নয়। ‍কিছু সমস্যা থেকেই যায়। যেমন আমাদের খোচা দিতে দিতে অভ্যাস হয়ে গ্যাছে মানে টাচ্‌ না করলে ভাল লাগেনা আরকি। সেক্ষেত্রে কিবোর্ড এবং মাউস ব্যবহার করতে হবে। বেশি আউটডেটেড পিসি বা ল্যাপটপ হলে প্রব্লেম টা একটু বেশি ই হবে এটাই স্বাভাবিক। তো ব্যাপার টা হচ্ছে এই ভাইটির নাম প্রাইম ও.এস সুন্দর করে নামিয়ে নিয়ে পেনড্রাইভে বুটেবল করে ইউন্ডোজের মত করে সেটআপ করতে পারেন। ভাইজান কে নামাইতে গেলে আমাদের নিচের লেখাটি ইংলিশে এড্রেসবারে লিখে এন্টার করলেই প্রাইম ও.এস মেইন কনসোলটি নামাইয়া নিতে পারিবেন ধন্যবাদ।


প্রাইমওএস ডট ইন


আমাদের সাথে মেইনটেইন থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আবার আসবেন।

Friday, February 1, 2019

(ফ্রিল্যান্সিং) শুধু মাত্র ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করে আয়

ফটোশপ বা ইলাষ্ট্রেটর ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করে আয়


ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করে আয় করার ব্যাপারটা একদম সহজ।

বিভিন্ন অনলাইনে আপনি শুধু মাত্র ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ বা চেন্জ করে আয় করতে পারেন।



যারা নতুন তারা হয়তো ভাবছেন ফটোশপ কি? খায় নাকি মাথায় দেয়? আবার অনেকেই ফটোশপ সম্পর্কে সব কিছুই জানেন কিন্তু কাজ করতে ভয় পান। মনে করেন ফটোশপের মেনু দেখেই তো মাথা ঘুরান্টি দেয়? ভয়ের কিছুই নেই এখানে ফটোশপের পুরোটা মানে সব কাজ জানতে হবে এমনটি কিন্তু নয়? আপনি চাইলে বিগিনার লেভেল থেকেই ষ্টার্ট করতে পারবেন। কোন প্রকার দক্ষতার প্রয়োজন পড়বে না। যেমন কিছু টুলস আছে: পলিগনাল, ইরেজার, পেন টুল, মুভিং টুল, গ্রাডিয়ান্ট টুল আর কপি পেষ্ট তো আছেই, এবং লেয়ার, ব্যাকগ্রাউন্ড সম্পর্কে হালকা ধারনা থাকলে হবে আরো আছে ফিল্টারর্স যেখান থেকে খুব সহজে ব্যাকগ্রাউন্ড কে সিলেক্ট করে ব্লার করা বা কালার অপসারন করা সহজ। আসলে এভাবে টুলস এর নাম এবং অপশন গুলির নাম বলে শেষ করা যাবে না। কিন্তু কিছু বিষয় না বললেই নয় এগুলো হল বেসিক বিষয় শুধুমাত্র ধারণা দেওয়ার জন্য বলা আরকি।

বর্হিবিশ্বে অনেকেই শুধু মাত্র ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার সফলভাবে গড়েছেন এবং এখনোকাজ করছেন।ছবির কাজ বা ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভিং একটি সহজ কাজ যেটি খুবই অল্প সময়ে শেখা এবং করা সম্ভব।দেশের অনেকেই এটি নিয়ে কাজ করছেন এবং ভাল পরিমান অর্থ উপার্জন করছেন। চাইলে আপনিও এটি করতে পারেন যদি আপনার ধৈর্য্য থাকে। কারন ফ্রিল্যান্সি করার ক্ষেত্রে আপনি সাইনআপ করলেই যে কাজ পাবেন এমনটি নয় আপনার দক্ষতার একটি শোকেস বানাতে হবে এবং সেটি দেখেই আপনার কাজ পেতে সহায়তা করবে। সব থেকে বেশি ব্যাবহৃত ফটোশপ এর ব্যাপারে আমরা সবাই জানি এটি একমাত্র সহজতর সফটওয়্যার যা থেকে ভাল রেজুলেশন এবং ভাল পারফরমেন্স পাওয়া যায়। প্রযুক্তিগত ক্ষেত্রে আপডেট আমাদের সবাইকেই হতে হয় এজন্য একদম লেটেষ্ট ভার্শন শেখার এবং ব্যবহার করার পরামর্শ রইল। 


(ফ্রিল্যান্সিং) এক্সেল এক্সপার্ট ড্যাটা এন্ট্রি, ড্যাটা মাইনিং, ভিবিএ/ম্যাক্রো

ফ্রিল্যান্সিং এ এক্সেল একটি গুরুত্বপুর্ণ অধ্যায় পার করছে।


এখনকার দিনে হিসাব বা ডাটা আরো সহজে সংরক্ষণ করতে আমরা সবাই এক্সেল ব্যবহার করে থাকি। এটির চলন বাংলাদেশে কম হলেও বর্হিবিশ্বে এটির ব্যাবহার ব্যাপক।

বর্হিবিশ্বে এক্সেল এক্সপার্টের মূল্য অশীম। অনুরুপ ফ্রিল্যান্সিং এও এটির চাহিদা ব্যপক।


দেশের বা পার্শ্ববর্তীদেশগুলোর অনেক ফ্রিল্যান্সাররাও শুধু মাত্র এক্সেল কাজ করে প্রচুর টাকা উপার্জন করছেন। এক্সেল এর কাজ করতে যে আপনাকে পুরোপুরি এক্সেল জানতে হবে তা কিন্তু নয়। কারন যদি আপনি এক্সেল সম্পর্কে পুরোটা শিখতে চান তাহলে আপনার জীবনের / বছর এক্সেল এর পিছনেই ব্যায় করতে হবে। এখন চিন্তা করছেন তাহলে মুলত করব টা কি?

করার তো অনেক কিছুই আছে যেমন বিগিনার লেভেলে, আপনি করতে পারেন ড্যাটা এন্ট্রি এর পর আস্তে আস্তে ফরমুলা গুলি শিখে নিতে পারেন গুগোল থেকে সার্চ করে দেখে নিতে পারেন। ম্যাক্রো এবং ভিবিএ কোডিং শিখে নিতে পারেন এখন প্রশ্ন জাগতেই পারে এগুলো কি খায় নাকি মাথায় দেয়? ম্যাক্রো হল একটি স্ক্রিপ্ট সেটা যেকোন রকম হতে পারে তাদিয়ে একটি জিনিস বার বার করতে পারেন কপি পেষ্ট এর মতো বলতে পারেন কিছুটা কিন্তু আসলে তা কিন্তু নয় এটি কপি পেষ্ট এর থেকেও আরো সহজতর করার জন্য ব্যবহার করা হয়। ভিবিএ কোডিং এর মাধ্যমে আপনি ইউজার ফরম বা ইউজার ইন্টারফেইস তৈরী করতে পারেন যেটি দিয়ে ড্যাটা এন্ট্রি আরো সহজতর করা যায়। বর্হিবিশ্বে মুলত কাজ সহজতর করার জন্য এই মাধ্যম গুলি ব্যবহার করা হয় বা তারা এই ধরণের কাজ করিয়ে নেওয়ার জন্য বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে ফ্রিল্যান্সারদের দিয়ে কাজগুলি করিয়ে নেন।

তো প্রথমে যেটি করতে আমাদের তরফ থেকে পরামর্শ থাকবে সেটি হল।
আপনার টার্গেট থাকতে হবে বেসিক কিছু ড্যাটা  এন্ট্রি/ড্যাটা মাইনিং, ভিবিএ কোড ম্যাক্রো কোড সম্পর্কে ধারণা নেওয়া। যাদি আপনি এক্সেল সম্পর্কে কিছু বেসিক কাজ হতে শুরু করেন তাহলে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করে আপনার ক্যারিয়ার সফল ভাবে গড়তে পারেন। তবে এটি গ্যারান্টি সহকারে কেউ বলতে পারবে না আপনি কতটুকু উপার্জন করতে সক্ষম হবেন। কারন প্রতিটি কাজের ভিন্ন ভিন্ন চাহিদা অপেক্ষ্য মুল্য ধার্য্য করা হয়।

আমাদের পেজ ভিজিট করার জন্য এবং সাথে থাকার আপনাকে ধন্যবাদ, যে কোন প্রয়োজনে আমাদের সাথো চ্যাট অথবা ফোন করুন সাপোর্ট নাম্বারে।